তুরস্কের পার্লামেন্টে এমপিদের তুমুল মারামারি

0
86

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগানকে নিয়ে অসম্মানজনক মন্তব্য করায় দেশটির পার্লামেন্টে এমপিদের মধ্যে তুমুল মারামারির ঘটনা ঘটেছে।

বুধবার (৪ মার্চ) বিরোধী দল ‘রিপাবলিকান পিপলস পার্টি’র সংসদ সদস্য এনজিন অজগোকের বক্তব্যের জের ধরে ওই মারামারির ঘটনা ঘটে। আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম থেকে এ তথ্য জানা যায়। এরই মাঝে মারামারির একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

খবরে বলা হয়, সম্প্রতি এক সংবাদ সম্মেলন ও টুইটার পোস্টে এনজিন অজগোক রিসেপ তাইয়েপ এরদোগানের বিরুদ্ধে কয়েকদিন আগে সিরিয়ার ইদলিবে নিহত হওয়া তুর্কি সেনাদের ‘অসম্মান’ করার অভিযোগ তোলেন। শুধু তাই নয়, এর সূত্রে অজগোক এরদোগানকে ‘অজ্ঞ, নীচ ও বেঈমান’ বলেও গালমন্দ করেন।

ওই সংসদ সদস্য এরদোগানের বিরুদ্ধে সিরিয়ার যুদ্ধে তুর্কি শিশুদের পাঠানোরও অভিযোগ তোলেন। অথচ এরদোগান নিজের সন্তানদের সামরিক সংশ্লিষ্টতা থেকে দূরে রেখেছেন বলে উল্লেখ করেন তিনি।

বুধবার অজগোকের ওই মন্তব্যের জেরেই পার্লামেন্টে তুমুল হাঙ্গামা ও মারামারির ঘটনা ঘটে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ওই মারামারির ভিডিওতে দেখা যায়, কয়েক ডজন পার্লামেন্ট সদস্য তাতে যোগ দিয়েছেন। কেউ কেউ ডেস্কের ওপর উঠে বিরোধীপক্ষকে কিল-ঘুষি মারছেন। অনেকে আবার মারামারি থামানোরও চেষ্টা করছেন। সংঘর্ষে কয়েকজন আইনপ্রণেতাকে মাটিতে পড়েও যেতে দেখা যায়।

ওজকস এর আগে টুইটারে ও সংবাদ সম্মেলনে সিরিয়ায় তুরস্কের সেনা অভিযান নিয়ে প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়িপ এরদোয়ানের কঠোর সমালোচনা করেছিলেন।

এরদোয়ানকে ‘বেইমান, ইতর, নীচ ও বিশ্বাসঘাতক’ অ্যাখ্যা দিয়ে তিনি প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে সিরিয়ায় নিহত তুর্কি সেনাদের অসম্মান করারও অভিযোগ এনেছিলেন।

“প্রেসিডেন্ট তুরস্কের সন্তানদের যুদ্ধে পাঠাচ্ছেন, অথচ তার সন্তানদের বিরুদ্ধেই সেনাবাহিনীতে দীর্ঘসময় সেবা দেয়ার নিয়ম এড়ানোর অভিযোগ রয়েছে,” বলেছিলেন ওজকস।

এর আগে দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে দেওয়া এক বক্তৃতায় এরদোয়ানও সিরিয়ার উত্তরপশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশে তুরস্কের অভিযান নিয়ে প্রশ্ন তোলায় বিরোধীদেরকে ‘বেইমান, ইতর, নীচ ও বিশ্বাসঘাতক’ বলে অভিহিত করেছিলেন।

তুর্কি পার্লামেন্টের স্পিকার মুস্তাফা সেন্তোপ সিএইচপির সাংসদ ওজকসের মন্তব্যের সমালোচনা করেছেন। বিরোধী এ সাংসদ ‘প্রেসিডেন্টকে অপমান করেছেন কিনা’ সরকারি আইনজীবীরা তা খতিয়ে দেখছেন বলেও তুরস্কের রাষ্ট্রনিয়ন্ত্রিত বার্তা সংস্থা আনাদোলু জানিয়েছে।

ইদলিবে রুশ সমর্থিত সিরীয় বাহিনীর সঙ্গে যুদ্ধে এখন পর্যন্ত অন্তত ৫৯ তুর্কি সেনা নিহত হয়েছে বলে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে।

পরিস্থিতি নিয়ে রাশিয়ার পপ্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে কথা বলতে এরদোয়ানের বৃহস্পতিবার মস্কো যাওয়ার কথা রয়েছে। দুই নেতা ইদলিবে যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা করবেন বলে অনুমান করা হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here